ঈশ্বরদীতে ভূমিমন্ত্রী পুত্র তমাল বাহিনীর হামলায় যুবলীগ নেতা গুরুতর আহত

প্রকাশকাল- ২১:১১,ডিসেম্বর ১১, ২০১৭,রাজশাহী বিভাগ বিভাগে

AAAAAপাবনার ঈশ্বরদীতে এবার ভূমিমন্ত্রীর পুত্র শিরহান শরীফ তমালের ক্যাডার বাহিনীর নৃশংস হামলার শিকার হয়েছেন যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেন (৩৮)। রোববার রাতে ঈশ্বরদী শহরের আমবাগান এলাকায় তাকে কুপিয়ে আহত করে তারা। আলমগীর পৌর যুবলীগের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। আহত আলমগীর ভূমিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শামসুর রহমান শরীফ ডিলু এমপি‘র বিরোধী পক্ষ পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদ (ভুমিমন্ত্রীর জামাই) এর সমর্থক।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি জানান, যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেন রোববার রাতে আমবাগান পুকুর পাড়ে মল্লিক চাঁদের চায়ের দোকানের কাছে আসা মাত্র একদল দুর্বৃত্ত লাঠি, ধারালো চাপাতি ও রামদা নিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। দুর্বৃত্তরা আলমগীরকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে ও চাপাতি, রামদা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় আলমগীরকে উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
ওসি আরো জানান, দীর্ঘ দিন ধরে ঈশ্বরদীতে আওয়ামীলীগে মধ্যে অভ্যন্তরীন কোন্দল চলছে। ঈশ্বরদীতে আওয়ামীলীগের বিবাদমান দুইটি পক্ষের দ্বন্দ্বের জের ধরে এই ঘটনা ঘটতে পারে বলে তিনি জানান।
এ ব্যাপারে পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টু বলেন, ভূমিমন্ত্রীর প্রশ্রয়ে তার ছেলে তমালের নেতৃত্বে মাদকসেবী ও চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা আওয়ামী লীগের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা কর্মীদের প্রতিনিয়ত হামলা ও নির্যাতন করে আসছে। এর আগে ভূমিমন্ত্রীপুত্র তমালের নেতৃত্বে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ, মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীঘর ভাংচুর ও মারধর করেছে। এই ঘটনায় জেল খাটার পরও তাদের বাহিনীর দাপট কমেনি। তাদের অন্যায়ের প্রতিবাদ করার কারণেই আলমগীরকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
উল্লেখ্য, গত ২৯ নভেম্বর রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প এলাকায় সশস্ত্র অবস্থায় প্রতি পক্ষের উপর হামলা করে ভূমিমন্ত্রীপুত্র শিরহান শরীফ তমাল ও তার ক্যাডারবাহিনী। এ ঘটনার ছবি ধারণ করতে গেলে তাদের হামলায় গুরুতর আহত হন সময় টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি এস এ আসাদ, ডিবিসির জেলা প্রতিনিধি পার্থ হাসান, পরিবর্তন ডটকম ও এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি রিজভী জয়, ক্যামেরা পার্সন মিলন হোসেন। সাংবাদিক হত্যা চেষ্টা মামলায় প্রধান আসামী তমাল ও রাজীব সরকারসহ কোন আসামীকে পুলিশ এখনো পর্যন্ত গ্রেফতার করেনি।