পতœীতলায় বাল্যবিবাহ ও জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশকাল- ২১:১৩,ডিসেম্বর ১১, ২০১৭,রাজশাহী বিভাগ বিভাগে

সিয়াম সাহারিয়া,পতœীতলা প্রতিনিধি ঃ

seam saharia news pictures 11-12-17

নওগাঁর পতœীতলায় বাল্যবিবাহ ও জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে, জাতীয় কন্যাশিশু এডভোকেসি ফোরাম, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এবং গার্লস এডভোকেসি এলায়েন্স এর সৌজন্যে উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়ন এবং দিবর ইউনিয়নের উত্তরামপুর ফুটবল মাঠে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে যুবদের করনীয় বিষয়ে গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহি পাতা খেলা, আলোচনা সভা এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার ১১ ডিসেম্বর সকালে উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়নের চকমহেষ বড় বাবু একাডেমি মাঠে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার এবং বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের আয়োজনে গ্রামীণ পাতা খেলা, লিফলেট বিতরণ, আলোচনা সভা এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তদুপলক্ষে আকবরপুর ইউনিয়ন বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের সভাপতি এবং আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য নিলুফা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন আকবরপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোহাম্মাদ আলী, বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের পতœীতলা উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি লাভলী চৌধুরী, পতœীতলা উপজেলা গণগবেষণা ফোরাম সভাপতি শাহিনুর রহমান, ইয়ূথ লিডার আরিফুল ইসলাম, আরাফাত হোসেন, মহব্বত হোসেন, নুরনবী, খাইরুল ইসলাম, এলাকা সমন্বয় কারী আসির উদ্দীন প্রমূখ।
বক্তারা বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ এবং জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা রোধে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাইকে এক যোগে কাজ করার উদাত্ত আহবান জানান। এছাড়াও বাল্যবিয়ের মতো গর্হিত কাজের মধ্যদিয়ে একটি কন্যা শিশুর জীবন কে সংকটাপন্ন করে তোলা হয়ে থাকে। এ পরিস্থিতিতে তৃণমূল পর্যায়ে জন-সচেতনতা বৃদ্ধি এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল নেতৃত্বেও প্রতি গুরুত্বারোপ করা হয়। আলোচনা শেষে অংশ গ্রহণ কারী ৪টি দলের প্রত্যেক কে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।
এদিকে বেলা ৩ টায় উপজেলার ৩নং দিবর ইউনিয়ন পরিষদ এবং ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের উদ্যোগে উত্তরামপুর ফুটবল মাঠে গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহি পাতা খেলা, আলোচনা সভা এবং পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঐতিহ্যবাহি পাতা খেলায় আব্দুল হান্নান খানের নেতৃত্বে ৭টি দলের জমকালো খেলা এলাকার প্রায় ২০০০ নারী-পুরুষ উপভোগ করে। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে নিজেদের অবস্থান কন্যা শিশুর পক্ষে রাখবেন এবং তাকে বিয়ে না দিয়ে আদর্শ মানুষে রুপান্তরিত করবেন বলে ঘোষণা দেন। কন্যা শিশুর অভিভাবক ইজাবুল হোসেন, আমিনা বেগম এবং আব্দুল কাদের বলেন- “আমরা বাল্য বিয়ে দেব না এবং হতেও দেব না, ইউনিয়ন পরিষদ যেন জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধন না করেন এবং এভিডেভিট দেখে যেন বিয়ে পড়ানো না হয়।”ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানগণ নিজেদের বাল্যবিবাহের বিপক্ষে জিরোটলারেন্স এবং সব ধরণের সহায়তার ঘোষণা দেন। আলোচনা সভা শেষে ৭টি দলের প্রত্যেক সদস্য কে পুরস্কার হিসেবে নারিকেল বিতরণ করা হয়।