পাইকগাছায় কাঁচা মরিচের বাজার আকাশ ছুঁয়েছে

প্রকাশকাল- ২০:৪০,অক্টোবর ১১, ২০১৭,খুলনা বিভাগ বিভাগে

12.00-1খুলনা প্রতিনিধি ॥
খুলনার পাইকগাছায় হাট-বাজরে কাঁচা মরিচের মূল্য ঊর্ধগতির কারণে সল্পআয়ের ভোক্তারা বিপাকে। বর্তমানে পাইকারী বাজারে কাঁচা মরিচ কেজি প্রতি ১৫০-১৬০ টাকা দরে বিকিকিনি হচ্ছে। আবার খুচরা বাজারে তা ১৮০-২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আবার বাজার ভেদে মূল্য আরো বেশি। মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই দ্বিগুণ হয়ে গেল কাঁচা মরিচের দাম। দাম বেশী হওয়ায় নিন্ম আয়ের মানুষের নাগালের বাইরে এখন কাঁচা মরিচ। ব্যবসায়ীরা দাম বেশি হওয়ার কারণ হিসেবে দেখছে উত্তরাঞ্চলের সম্প্রতি বন্যা ও টানা বৃষ্টি।
সরেজমিনে জেলার অন্যতম পাইকারি বাণিজ্যক উপশহর কপিলমুনি হাটে গিয়ে দেখা গেছে, পূর্বের কয়েক হাটের তুলনায় বাজারে কাঁচা মরিচের আমদানী কম। কথা হয় কয়েকজন কাঁচা মরিচ ব্যবসায়ীর সাথে। মরিচ ব্যবসায়ী আব্দুল, হাকিম, নাসির, হাফিজ, রেজাউলসহ কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, বিভিন্ন কাঁচা মালের আড়ৎ থেকে এসব কাঁচা মরিচ অনেক চড়া দামে কিনে এনেছেন তারা। ক্রয় মূল্যের সাথে মাল আনায়ন (পরিবহন) খরচ যুক্ত হয়ে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ১৫০-১৬০ টাকা দরে বিক্রি করেও খুববেশী লাভবান হতে পারছেন না তারা। অপরদিকে কাঁচা মরিচের দাম বেশী হওয়ায় অনেকেই কাঁচা মরিচ কম কিনে, শুকনা মরিচের দিকে ঝুঁকছে। অবশ্য শুকনা মরিচের বাজার মূল্য এক প্রকার স্থিতিশীল রয়েছে। মাত্র কয়েক দিন আগে কপিলমুনি হাট-বাজারে কাঁচা মরিচের কেজি প্রতি পাইকারি দাম ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা। কয়েক দিনের ব্যবধানে তা এখন ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায়। মরিচ ব্যবসায়ীরা আরো বলেন, উত্তরাঞ্চলের যে সব ক্ষেতে মরিচ চাষ হয় সেগুলো সাম্প্রতিক বন্যার পানিতে ডুবে নষ্ট হয়ে গেছে। শুধু মাত্র যেসব এলাকায় উচু জমিতে মরিচ চাষ করা হয়েছে সেসব এলাকা থেকে এখন কিছু কিছু মরিচ পাওয়া যাচ্ছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। চাহিদার সাথে যোগানের সামঞ্জস্যতা না থাকায় কাঁচা মরিচের বাজার আকাশ ছুঁয়েছে।