পাইকগাছায় যুবলীগনেতা কর্তৃক পূজা বন্ধের হুমকি ও চাঁদা দাবি

প্রকাশকাল- ২১:৩৩,ডিসেম্বর ১১, ২০১৭,খুলনা বিভাগ বিভাগে

খুলনা প্রতিনিধি ॥

11..22

খুলনার পাইকগাছা উপজেলা যুবলীগ নেতা কর্তৃক পূজা বন্ধের হুমকি ও ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করায় সোমবার বিকালে কপিলমুনি বাজারে এক মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ যুবলীগনেতার বিচারের দাবিতে পূজা বন্ধ রেখেছে আয়োজক কমিটি। এর আগে রবিবার শতাধিক এলাকাবাসী কপিলমুনি ইউনিয়ন পরিষদে হাজির হয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।
লিখিত অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলার কপিলমুনি গোয়ালবাথানে জি কে টি সি সি সন্নাসীতলা মহা শশ্মান ও শশ্মানকালী মন্দিরের উদ্যোগে আগামী ১২ ডিসেম্বর থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৫ দিন ব্যাপী কালি পূজার আয়োজন করা হয়। শুক্রবার রাত আনুমানিক ৯টার দিকে উপেজলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ রাজ্জাক রাজু মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণ পদ ঢালীর ০১৯২৫-১৮০৭১৩ মুঠোফোনে তার ০১৭১১-০৬৬১৬৩ এই নাম্বার থেকে সেখানে পূজা বন্ধ করেত হুমিক দেয়। বলা হয় সেখানে পূজা করতে হলে তাকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা ও আমন্ত্রণ পত্রে অতিথিদের সাথে তার নামও বাধ্যতামূলক রাখেত হবে, তা না হলে তাদের সেখানে পূজা করতে দেয়া হবেনা। বিষয়টি কৃষ্ণপদ তাৎক্ষণিক পূজা কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দসহ এলাকাবাসীকে জানালে তারা অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি কার্যক্রম সাময়িক ভাবে বন্ধ করে দেন। এদিকে শনিবার এলাকবাসী সম্মলিতভাবে কপিলমুনি ইউিনয়ন পরিষদে ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণ পদ ঢালী, প্রীতিশ মন্ডল, বিনাই গোলদার, প্রনাব কন্তি মন্ডল, সুকুমার ঢালী সহ ৪৬ জন এলাকাবাসী একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ রাজ্জাক রাজু বলেন, আমি শুধু বলেছিলাম অনুষ্ঠানের ব্যানারে আমার নামটা রাখতে। চাঁদাদাবীর বিষয়টা সঠিক নয় দাবী করে তিনি বলেন, আগামী ইউপি নির্বাচনে আমি কপিলমুনি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রাথী তাই আমার প্রতি ইর্ষান্নিত হয়ে এমন অভিযোগ তোলা হয়েছে।
পাইকগাছা উপেজলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আনন্দ মোহন বিশ্বাস বলেন, এমন একটা বিষয় আমি শুনেছি তবে আমার কাছে লিখিত কোনো অভিযোগ দেওয়া হয়িন।
কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ কওছার আলী জোয়াদ্দার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, এ ব্যাপারে এমপি ও পূজা উদযাপন পরিষদসহ সংশ্লিষ্ঠ সকলকে নিয়ে বসাবসি করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।