পিএইচডি করবেন মুশফিক

প্রকাশকাল- ০৮:২৮,আগস্ট ৭, ২০১৭,খেলা বিভাগে

msfiq.মুশফিকঢাকা : বাংলাদেশ ক্রিকেটের অনেক বড় নাম মুশফিকুর রহীম। ব্যাটিংয়ে নামলে তার উপর ভক্তদের অগাধ আস্থা থাকে বলেই তাকে আদর ডাকেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’। মাঠে ব্যাট হাতে যেমন দুর্দান্ত তেমন পড়াশোনায়ও দারুণ মেধাবী। খেলাধুলায় প্রচণ্ড ব্যস্ত থাকার পরও স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে পেয়েছেন প্রথম শ্রেণি। এবার পিএইচডি শুরু করতে চান। নিজে অ্যাথলেট। তাই খেলাধুলা বিষয়টিকেই পিএইচডির জন্য বেছে নিচ্ছেন তিনি।

শিক্ষা জীবনের শুরুটা বগুড়ার স্থানীয় স্কুলে করলেও পরবর্তী সময়ে মুশফিক যোগ দেন বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা বিকেএসপিতে। সেখান থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করেছেন জিপিএ-৫ নিয়ে। এরপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাসে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন মুশফিক। দুটোতেই পেয়েছেন প্রথম শ্রেণি। দেশসেরা এই ব্যাটসম্যান আরো পড়াশুনা করতে চান, পেতে চান ডক্টরেট ডিগ্রি। সেটা জানিয়েই বলেছেন, ‘আমি এর মধ্যে খেলাধুলায় পিএইচডি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দক্ষিণ এশিয়ান ক্রিকেটের উপর পিএইচডি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি।’

বর্তমান সময়ে অনেক পরিবারের ছেলেমেয়ে বড় হয়ে পিতামাতার সঠিক খেয়াল রাখে না। যোগ্য সন্তানও তারা হয়ে ওঠে না। শিক্ষার অভাবেই এমনটা হয় বলে মনে করেন মুশফিক। তাই পরবর্তী প্রজন্মকে সঠিক শিক্ষা অর্জনের তাগিদ দেন তিনি, ‘শিক্ষাগ্রহণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটি আপনাকে আরও জ্ঞানী হতে সাহায্য করে। একজন মানুষ হিসেবে আমি চাই আমার পরবর্তী প্রজন্ম তাদের বাবা-মায়ের দিকে লক্ষ্য রাখুক। অনুধাবন করুক শিক্ষা অর্জন কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আপনি যেই হোন না কেন।’

ছেলেমেয়েকে সঠিক শিক্ষা দেওয়ার জন্য পিতামাতার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক। নিজে যে শিক্ষার ধারাবাহিকতায় আছেন সেজন্য বাবা-মার কথাও উল্লেখ করেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল। তাদের উৎসাহের কারণে এতোটা করতে পেরেছেন বলে জানান এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান, ‘আমার বাবা-মা সবসময়ই আমাকে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে উৎসাহিত করেছেন।’