পৃথিবী প্রদক্ষিণে ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অণ্বেষা’ উৎক্ষেপণ

প্রকাশকাল- ০৭:৪৪,জুলাই ৯, ২০১৭,তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগে

1499500361ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অণ্বেষা’ আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন থেকে পৃথিবী প্রদক্ষিণ শুরু করেছে। গতকাল শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টা ১০ মিনিটে এটি উৎক্ষেপণ করা হয়। এ উপলক্ষে গতকাল ইউনিভার্সিটির অডিটোরিয়ামে ভিডিও কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়। জাপান অ্যারোস্পেস এক্সপ্লোরেশন এজেন্সি এ কনফারেন্সের আয়োজন করে। এতে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ প্রদর্শিত হয়।
স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপনের পর জাপানের অ্যারোস্পেস এজেন্সির সঙ্গে স্কাইপেতে ভিডিওর মাধ্যমে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর সৈয়দ সাদ আন্দালিব ওই এজেন্সি, নাসা, জাপান সরকারসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
কনফারেন্সে জানানো হয়, মহাকাশ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গবেষণা ও পর্যবেক্ষণে কাজ করবে স্যাটেলাইটটি। এ ছাড়া নানা বিষয়ে গবেষণার জন্য উচ্চমানের ছবি তুলে পাঠাবে স্যাটেলাইটটি।
ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির গবেষকরা তাদের গবেষণা ও শিক্ষাদান কার্যক্রমে এ সব তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করবেন। ন্যানো সাটেলাইটটি পৃথিবী থেকে ৪০০ কি.মি. ওপরে অবস্থান করবে এবং পৃথিবীর চারপাশে প্রদক্ষিণ করে আসতে ৯০ মিনিট সময় লাগবে। এটি বাংলাদেশের উপর দিয়ে দিনে ৪ থেকে ৬ বার উড়ে যাবে এবং ঠিক ওই সময়েই সব তথ্য ও ছবি প্রেরণ করবে; যা এ স্টেশন গ্রাউন্ড সংগ্রহ করবে। এ কারণে স্টেশন গ্রাউন্ডটি ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে বলে জানানো হয়েছে।
ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অণ্বেষা’ গত ৪ জুন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় অবস্থিত নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে স্পেসএক্স ফ্যালকন-৯ রকেটের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয়।
স্যাটেলাইটটির সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগের জন্য ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের মহাখালী ক্যাম্পাসের ৪ নং ভবনের ছাদে তৈরি গ্রাউন্ড স্টেশন প্রস্তুত করা হয়েছে। গত ২৫ মে এটি উদ্বোধন করেন ব্র্যাকের চেয়ারপারসন ফজলে হাসান আবেদ।
গত ফেব্রুয়ারিতে জাপানে অনুষ্ঠিত এক অনুষ্ঠানে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর সৈয়দ সাব আন্দালিব ‘কিউশু ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি’র কাছ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ন্যানো স্যাটেলাইটটি গ্রহণ করেন। একই অনুষ্ঠানে ‘জাপান অ্যারোস্পেস এক্সপ্লোরেশন’ এজেন্সির কাছে মহাকাশে উৎক্ষেপণের জন্য ন্যানো স্যাটেলাইটটি হস্তান্তর করা হয়।