বাঘায় গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার’স্বামী আটক

প্রকাশকাল- ২০:২৮,অক্টোবর ১৭, ২০১৭,রাজশাহী বিভাগ বিভাগে

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি :

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মনিগ্রামে বৃষ্টি খাতুন (১৮) নামের এক নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে বাঘা থানা পুলিশ তার শ্বশুর বাড়ি থেকে ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে। পরে দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পুলিশের ধারণা, বৃষ্টিকে হত্যার পর লাশের গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ নিহত বৃষ্টির স্বামী মাহাবুরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। এলাকা সুত্রে জানাগেছে, গত এক মাস পূর্বে মনিগ্রাম এলাকার নবির উদ্দিনের ছেলে মাহাবুর রহমান(২৬)এর বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী চারঘাট উপজেলার নন্দনগাছি গ্রামের হামিদুর রহমানের মেয়ে বৃষ্টি(১৫)এর সাথে। বৃষ্টির বোন দোলেনা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, বিয়ের পর থেকে তার বোন এই বাড়িতে খুব কষ্টে ছিল। তাকে বাবার বাড়ির লোকজনের সাথে ঠিকমত যোগাযোগ করতে দিত না মাহাবুর। তবে মাহাবুর দাবি করেছেন,এ অভিযোগ সঠিক নয়। তার স্ত্রী অন্য একটি যুবকের সাথে মোবাইলে কথা বলত। বিষয়টি জানার পর সে গোপনে স্ত্রীর মোবাইলের কল রেকর্ডার চালু করে রাখেন। এনিয়ে সর্বশেষ গত সোমবার দিবাগত রাতে সে তার স্ত্রীর প্রতি ক্ষীপ্ত হয়। আর এ রাগে ভোররাতে তার স্ত্রী আত্মহত্যা করে। বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহামুদ জানান, এই মৃত্যুর পেছনে যথেষ্ট রহস্য রয়েছে। যে স্পটে ওড়না বেঁধে গলায় ফাঁস দেয়া হয়েছে সেখানে ওড়না বাঁধা বৃষ্টির পক্ষে সম্ভব নয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ধারণা, স্ত্রীর পরকীয়া সইতে না পেরে অতিরিক্ত রাগে তার স্বামী তাকে খুন করতে পারে। তবে ময়না তদন্তের পর এটি সঠিকভাবে বলা যাবে বলে ওসি জানান।