মানুষ ভালবেসে লাল সবুজ পতাকা কেনে

প্রকাশকাল- ২২:২১,ডিসেম্বর ১১, ২০১৭,চলনবিলের সংবাদ বিভাগে

ইকবাল কবীর, চাটমোহর (পাবনা)

flag pic-1

এসেছে বিজয়ের মাস। আগামি ১৬ ডিসেম্বর শনিবার সারা দেশে পালিত হবে মহান বিজয় দিবস ২০১৭। দিবসটি উপলক্ষ্যে চারদিকে পরছে সাজ সাজ রব। বসে নেই পতাকা বিক্রেতারাও। ভোর হতে না হতেই জীবন জীবিকার তাগিদে তারাও বেড়িয়ে পরছেন পতাকা বিক্রি করতে।

১১ ডিসেম্বর সোমবার পাবনার চাটমোহর পৌর সদরে জাতীয় পতাকা বিক্রি করতে দেখা যায় মাদারীপুর জেলার শিবচর থানার বাগমারা গ্রামের সূর্য মিয়ার ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩৬)কে। শহিদুল ইসলাম জানান, বিগত দশ বছর যাবত বিজয়ের মাস ডিসেম্বর, ভাষার মাস ফেব্রুয়ারী, স্বাধীনতার মাস মার্চ ও বাংলা নববর্ষ উপলক্ষ্যে পতাকা বিক্রি করে আসছেন তিনি। এ অনুষ্ঠান গুলোর পূর্বে দুই সপ্তাহ জাতীয় পতাকা, মাথার ব্যাচ, হাতের ব্যাচ, পকেট ব্যাচ ও কাঠির মাথায় লাগানো পতাকা বিক্রি করেন। আকার ভেদে লাল সবুজ পতাকা গুলো ২০ টাকা থেকে ১৫০ টাকায়, মাথার ব্যাচ ১০ টাকায়, হাতের ব্যাচ ২০ থেকে ৩০ টাকায়, পকেট ব্যাচ ১৫ থেকে ১৫০ টাকায়, কাঠি পতাকা ১০ টাকায় বিক্রি হয় বলে জানান তিনি।

অন্যসময় এলাকায় মাটির ট্রলির শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন শহিদুল। তিনি আরো জানান, মানুষ বিজয়ের চেতনাকে বুকে লালন করেন। নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে যে বিজয় আমাদের পূর্ব পুরুষেরা ছিনিয়ে এনেছেন আজ সে বিজয়ের ফল ভোগ করছি আমরা। মাটির ট্রলীতে কাজ করে প্রতিদিন ৪শ টাকা পান তিনি। পক্ষান্তরে প্রতিদিন হাজার চারেক টাকার পতাকা বিক্রি করে অন্তত এক হাজার টাকা লাভ করেন। শিবচরের ৭ জন পতাকা বিক্রেতামিলে একত্রে ঢাকার শ্যাম বাজার এলাকা থেকে বিক্রির উদ্দেশ্যে ৭০ হাজার টাকার পতাকা ও ব্যাচ কিনেছেন। রাত্রি যাপন করেন পাবনার হোটেলে। দিনের বেলায় তারা বিভিন্ন উপজেলায় বেড়িয়ে পরেন পতাকা বিক্রি করতে। এসময় অতিরিক্ত আয়ের আশায় তারা অন্যকাজ বাদ দিয়ে পতাকা বিক্রি করেন বলে জানান। যে পতাকা, ব্যাচ গুলো বিক্রি হবেনা সেগুলি অন্যান্য জাতীয় অনুষ্ঠানের সময় বিক্রি করবেন বলে জানান।