মাভাবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষায় অসুদুপায় অবলম্বনের দায়ে ১৪ শিক্ষার্থী আটক

প্রকাশকাল- ২০:৩৭,ডিসেম্বর ৮, ২০১৭,ঢাকা বিভাগ বিভাগে

DSC_0129মাভাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ‘এ’ ও ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। এমসিকিউ পদ্ধতিতে শুক্রবার সকালে ‘এ’ ইউনিট ও বিকালে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসসহ টাঙ্গাইল শহরের কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হয়। বিশ^বিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ আলাউদ্দিন ভর্তি পরীক্ষার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে অসুদুপায় অবলম্বনের দায়ে বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে ১৪ শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে। এ সময় আকটকৃতদের কাছ থেকে ১০টি ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস, ১০ টি ডিভাইসের ব্যাটারী, ৭টি ইয়ার ফোন, স্কসটেপ, ১টি পেন ডিভাইস, ডিভাইস ক্যাবল, ডিভাইস পরিধানের জন্য ১টি হ্যান্ড গ্লোবস উদ্ধার করা হয়।
আটককৃতরা হলেন, নেত্রকোনা জেলার মোঃ আফতাব উদ্দিনের ছেলে মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, কক্সবাজার জেলার জাফর আলমের ছেলে মোঃ ইসতিয়াক আহমেদ, কুড়িগ্রাম জেলার মোঃ নজরুল ইসলামের ছেলে মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মিল্টন ও মোঃ জয়নাল আবেদীনের ছেলে মোঃ মজনু রহমান, সিরাজগঞ্জ জেলার এম. আলমগীর হোসেনের ছেলে মোঃ জুবায়ের আলম ও মোঃ আব্দুল মতিনের ছেলে মোঃ আবু জোবায়ের মামুন, টাঙ্গাইল জেলার মোঃ জহিরুল ইসলামের ছেলে মোঃ শাহিন আলম জনি, মোঃ দেলুয়ার হোসেনের ছেলে মোঃ আসাদুজ্জামান আহাদ, মোঃ আবুল হোসেনের ছেলে মোঃ আমিনুল ইসলাম ও মোঃ বাবলু মিয়ার ছেলে মোঃ নাইবুর রহমান, কুষ্টিয়া জেলার মোঃ রাশেদুল ইসলামের ছেলে রাফাত বিন রাশেদ, মানিকগঞ্জ জেলার মোঃ আবুল কালাম আজাদের ছেলে মোঃ হাবিবুর রহমান, ময়মনসিংহ জেলার মোঃ খোকন মিয়ার ছেলে মোঃ মাসুদ মিয়া ও গাজীপুর জেলার বাবুল পালের ছেলে প্রদীপ পাল।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোঃ আশরাফ হোসেন বলেন, জালিয়াত চক্রের মূল হোতাকে ধরার জন্য অভিযান চলছে। আগামীকালের (শনিবার) ভর্তি পরীক্ষায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হবে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেন, ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে দুটি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবারের দুটি ইউনিটের পরীক্ষার ক্ষেত্রেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সর্তক রয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ আলাউদ্দিন বলেন, সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগীতায় সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করতে পেরেছি। কোন প্রকার জালিয়াতি ও অসুদুপায় অবলম্বনের সুয়োগ দেয়া হয়নি। যারা এর চেষ্টা করেছে তাদেরকে আটক করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে।
শনিবার (৯ ডিসেম্বর) সকালে ‘সি’ ইউনিট ও বিকালে ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড ও ওয়েব সাইট িি.িসনংঃঁ-ধফসরংংরড়হ.ড়ৎম থেকে জানা যাবে।