রাজশাহীতে পুলিশ সদস্যর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

প্রকাশকাল- ২০:৪৫,ডিসেম্বর ১১, ২০১৭,রাজশাহী বিভাগ বিভাগে

RAZKUMAR---FOTOনাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি:
রাজশাহীতে এক (কন্সটেবল) পুলিশ সদস্যর বিরুদ্ধে বিয়ের প্রভোলন নিয়ে এক সন্তানের জননীর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন, প্রতারণা ও ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত রোববার রাতে ভিকটিম বাদি হয়ে (পুলিশ সদস্য) রাজকুমারকে আসামি আসামি করে তানোর থানায় প্রতারণা ও ধর্ষণের মামলা করেছেন। এদিকে পুলিশ সদস্যর এমন নারী কেলেঙ্কারির ঘটনা জানাজানি হলে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ও সংশি¬ষ্ট বিভাগে তোলপাড় শুরু হয়েছে। জানা গেছে, তানোর পৌর এলাকার হাবিব নগর গ্রামের বাসিন্দা মনোরঞ্জন কুমারের পুত্র রাজকুমার পুলিশের (কনেষ্টেবল) পদে ঢাকায় কর্মরত রয়েছেন। সম্প্রতি ছুটিতে গ্রামের বাড়ি হাবিব নগর এসেছেন রাজকুমার। গত শনিবার রাজকুমার কাঁঠালপাড়া গ্রামে ওই মেয়ের বাড়িতে অবস্থান ও তাকে বিয়ের কথা বলে এলাকায় নিয়ে এসে বিয়ে না করে পালিয়ে যায়। এদিকে ওই মেয়ে গতকাল রোববার সকালে বিয়ের দাবিতে হাবিবনগর রাজকুমারের বাড়িতে গিয়ে অনশনে বসে। এ সময় রাজকুমার ওই মেয়েকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দিতে ব্যর্ধ হয়ে নিজে আতœগোপণ করে। এদিকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি আপোষ-মিমাংসার জন্য রোববার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দফায় দফায় বৈঠক করেও মিমাংসায় ব্যর্থ হয়। এদিকে রাতে ভিকটিম বাদি হয়ে তানোর থানায় রাজকুমারের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও ধর্ষণের অভিযোগ করেন। এই প্রতিবেদন তৈরীর সময়ে থানায় মামলার প্র¯ত্ততি চলছিল। এদিকে অভিযোগ না করে গ্রাম্য সালিশে আপোষ-মিমাংসার জন্য রাজকুমার ও তার দুলা ভাই বিভিন্ন মাধ্যমে ভিকটিম পরিবারকে ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে বলে ভিকটিম গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে অভিযোগ করেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাজকুমার পরিচয় গোপণ রেখে উপজেলার কাঠালপাড়া গ্রামের জনৈক ব্যক্তির কন্যা ও স্বামী পরিত্যক্ত এক সন্তানের জননীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এদিকে মন দেয়া-নেয়ার এক পর্যায়ে বিয়ের প্রতিশ্র“তি দিয়ে রাজকুমার তার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করে। গত শনিবার রাজকুমার ওই মেয়েকে বিয়ের কথা বলে বাড়ি থেকে নিয়ে আসে। কিšত্ত তাকে বিয়ে না করে কালীগঞ্জহাট এলাকায় রেখে রাজকুমার তার দুলা ভাইয়ের সঙ্গে পালিয়ে যায়। এবিষয়ে জানতে চাইলে ভিকটিম বলেন, প্রায় ৬ বছর ধরে রাজকুমারের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। কিšত্ত রাজকুমার বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তার সঙ্গে একাধিকবার অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে এখন সম্পর্কের কথা অস্বীকার করে পালিয়ে রয়েছে। এব্যাপারে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, রাজকুমারের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ মামলা হয়েছে। এদিকে তানোর থানার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, রাজকুমারকে চাকরিচ্যুত ও দুষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া দরকার। তিনি বলেন, এদের মতো কিছু সদস্যর জন্য গোটা পুলিশ বাহিনীর সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে।#